• ঢাকা
  • সোমবার, ২৪ Jun ২০২৪, ০১:১৭ অপরাহ্ন

বাগেরহাটে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উদযাপন


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৬, ২০২৩, ১০:০৮ PM / ২২৯
বাগেরহাটে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট : বাগেরহাটে মঙ্গল শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, নাম কীর্ত্তণ ও প্রার্থনাসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মতিথী শুভ জন্মাষ্টমী উদযাপন করা হয়েছে।

এ উপলক্ষে বুধবার দুপুরে বাগেরহাট শহরের শ্রী শ্রী হরিসভা মন্দির প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে বর্নাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে সনাতন হিন্দু ধর্মালম্বীদের বিপুল সংখ্যাক নারী পুরুষ অংশ গ্রহণ করে।
পরে বাগেরহাট শহরের শালতলায় শ্রী শ্রী হরিসভা মন্দির প্রঙ্গনে বাগেরহাট জেলা জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্রী নিলয় কুমার ভদ্রের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খালিদ হোসেন, পুলিশ সুপার কে এম আরিফুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ভুইয়া হেমায়েত উদ্দিন, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক মিলন কুমার ব্যনার্জি,বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আলহাজ¦ বাকী তালুকদারসহ অনেকে ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, পৃথিবী থেকে দুরাচারী দুষ্টদের দমন আর সজ্জনদের রক্ষার জন্যই মহাবতার ভগবান শ্রী কৃষ্ণ এই দিনে স্বর্গ থেকে পৃথিবীতে আবির্ভূত হয়েছিলেন। সমাজের বিদ্যমান ভ্রাতৃত্ব ও বন্ধুত্বের বন্ধনকে আরও সুদৃঢ় করতে সব সম্প্রদায়কে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।

সাজা সহ ৫ মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী প্রতারক কামাল প্রধান পলাতক

স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জের চিহ্নিত প্রতারক ও একাধিক মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামী কামাল প্রধানকে গ্রেফতার করতে পারছে না আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। তবে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে সূত্রে প্রকাশ।

জানা যায়, বন্দর থানাধীন বাগবাড়ী এলাকার আবুল প্রধানের কুলাঙ্গার ছেলে কামাল প্রধান নিজেকে কখনো সাংবাদিক, কখনো আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে। অন্যের জমি দখল, জাল দলিল সৃজন, বিদেশে লোক পাঠানোর কথা বলে টাকা আত্মসাৎ, ব্যাংকের ঋণ খেলাপী, সমাজের বিশিষ্ট জনদের নিয়ে অপপ্রচার করে ব্ল্যাকমেইলিং সহ বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত থেকে মানুষদের হয়রানী করছে। এছাড়াও আর্থিক সুবিধা আদায়ের জন্য মিথ্যা মামলা মোকদ্দমা দিয়ে হয়রানী করছে সাধারণ ও নিরীহ মানুষদের। এমন বেশ কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জের কয়েকটি থানায় ও আদালতে মামলা দায়ের হলে মামলাগুলো বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। এর মধ্যে বাদী সোহেল রানা প্রধানের দায়ের করা মামলায় (সেশন-৮৮৬/১৯) সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের অর্থঋণ আদালত প্রতারক কামাল প্রধানকে ৮ মাসের সাজা ও ৫ লাখ টাকা জরিমানা করে রায় প্রদান করেন। রায়ের পর পরই গ্রেফতারী পরোয়ানা ইস্যু হয়। একই বিবাদীর আরেকটি মানহানী মামলায় (সি.আর ৫৯১/১৯) কামালের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী ওয়ারেন্ট জারি রয়েছে। তল্লা এলাকার বাদী মোঃ আনিসুর রহমানের বন্দর থানার মামলায় (৪৫(১০)১৯) গ্রেফতারী ওয়ারেন্ট ইস্যু জারি করে বিজ্ঞ আদালত। এছাড়াও বাদী মনিরুজ্জামানের আদালতের মামলায় প্রতারক কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু হয়। বাদী রুবেল মিয়ার মামলায় (৩১৫/২৩) আদালত ওয়ারেন্ট ইস্যু করেছে। সোনারগাঁ থানার নাশকতার মামলায় বিষ্ফোরক দ্রব্য আইনে গত ২১ আগষ্ট কামালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। মামলা নং-৩১, আসামী নং-৯৭। এছাড়াও সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আরেকটি প্রতারনা মামলা দায়ের করেছে সোহেল রানা। বন্দরের আইয়ুব আলী বাবু, ফতুল্লার আল মামুন, নারায়ণগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতে প্রতারনাসহ বিভিন্ন অভিযোগে কামালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। কামালকে পূর্বেও কয়েকবার সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ও নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছিল। বর্তমানে সাজা পরোয়ানা সহ ৫টি মামলায় ওয়ারেন্ট ইস্যু থাকায় আত্মগোপনে চলে গেছে কামাল। ফেসবুক এবং জনসাধারণের কাছে বিদেশে আছে বলে প্রচার করলেও নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলার শুনানীতে বিদেশে যাওয়ার কোন প্রমাণ দেখাতে না পারলে বিজ্ঞ বিচারক ওয়ারেন্ট ইস্যু করে। প্রতারক কামাল প্রধান প্রায় ৮টি ফেসবুক ফেক আইডি খুলে বিভিন্ন মানুষ জন এবং মামলার বাদী পক্ষের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে মানসম্মান ক্ষুন্ন করে যাচ্ছে। এছাড়াও কামালের বিরুদ্ধে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ পেলে বিভিন্ন সংবাদ কর্মীকে ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপের ইনবক্সে হুমকী ধামকী দিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। প্রতারক কামাল প্রধানের বাড়ী বন্দর হলেও এলাকায় থাকতে পারছে না তাই কখনও ভূইয়াবাগ, কালীরবাজার থাকে বলে জানা যায়। তবে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে পলাতক আসামী কামাল প্রধান সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি পশ্চিম পাড়া মাজার রোডের ব্লব-বি তে শাহজালাল হাউজের ৫ম তলা বিল্ডিংয়ের ৩য় তলায় আত্মগোপন করে আছে। আরো জানা যায় কামাল ঠিকমতো বাসা ভাড়া না দিয়ে জালকুড়ি এলাকার এক বাড়ির মালিককে উল্টো হয়রানী করেছে। বর্তমানে সিদ্ধিরগঞ্জ, বন্দর, সোনারগাঁ ও নারায়ণগঞ্জ সদর থানা পুলিশ চিহ্নিত প্রতারক কামাল প্রধান ও তার সহযোগীদেরকে খুঁজে বেড়াচ্ছে। বিভিন্ন ভুক্তভুগিরা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর অন্যতম র‌্যাব ও ডিবির আশু হস্তক্ষেপ সহ থানা পুলিশের সহযোগীতা কামনা করেছে। রূপগঞ্জে পিবিআই এসপির বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর মামলা, হুমকি

 

রূপগঞ্জ সংবাদদাতা : ঢাকার ধানমণ্ডি শাখায় নিয়োজিত পিবিআই এর এসপি মিজানুর রহমানের নামে মামলা করেছেন রূপগঞ্জ উপজেলার বাগবেড় এলাকার ব্যবসায়ী মো. রুহুল আমিন। বাগবেড় ও কেয়ারিয়া মৌজায় জাল জালিয়াতির মাধ্যমে জমির দলিল সম্পাদন করে এসপি মিজান জমির প্রকৃত মালিকদের হুমকি দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছেন কোটি কোটি টাকা। সম্প্রতি এলাকার ১১ জনের নামে এসপি মিজান বাদি হয়ে রূপগঞ্জ থানায় মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন। এ ঘটনার পর এলাকাবাসী মিজানের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জের জলসিঁড়ি ১০০ ফিট সড়কে মানববন্ধন করেন। বাগবেড় এলাকার ব্যবসায়ী রুহুল আমিন বাদি হয়ে এসপি মিজানুর রহমান ও ঢাকাস্থ মিরপুর এলাকার বাসিন্দা কোবাজ আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর আলমকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। যার নং ৫৮৯/২৩।

জানা গেছে, ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার ভগবান নগর এলাকার আবুল হোসেন বিশ্বাসের ছেলে মিজানুর রহমান। তিনি পিবিআই এর ঢাকাস্থ ধানমণ্ডি শাখার পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত। পূর্বাচল উপশহর সংলগ্ন রূপগঞ্জ উপজেলার বাগবেড় এলাকায় ১৫-২০ বছর ধরে জাল-জালিয়াতি ও জমির ভুয়া মালিক সাজিয়ে দলিল সম্পাদন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। তার নামে বাগবেড় মৌজায় অন্তত ২০ কোটি টাকার জমি রয়েছে। জমি দখলে প্রতিবাদ করলে মামলা দিয়ে হয়রানি ও হুমকি দিয়ে আসছেন বলেও এলাকাবাসী জানান। অনেকের মুঠোফোনে এসপি মিজানের হুমকি-ধামকির রেকর্ড রয়েছে।
রূপগঞ্জ উপজেলার বাগবেড় এলাকার একাধিক বাসিন্দা জানান, এসপি মিজানুর রহমান বাদি হয়ে বন্দর থানার সোনাবিবি এলাকার মৃত ওমেষ চন্দ্র দাসের ছেলে বাদল চন্দ্র মনি ঋষি দাস, রূপগঞ্জের বাগবেড় গ্রামের মৃত আফজাল হোসেনের ছেলে মো. রুহুল আমিন, ব্রাহ্মণগাঁও এলাকার মৃত আব্দুল করিমের ছেলে জহুরুল ইসলাম পলাশ, বাড়িয়াছনি এলাকার শরিফুল ইসলামের ছেলে ইমরান হাসান, পিতলগঞ্জের বিল্লাল হোসেনের ছেলে জয়নাল আবেদীন, গোলাকান্দাইল এলাকার আরজু মিয়ার মেয়ে বিউটি বেগম, ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার রায়মনি খাগাটিপাড়া এলাকার মোবারক হোসেনের মেয়ে মাসুদা খাতুন, নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জ এলাকার বিষুর ছেলে বিকাশ, সোনারগাঁয়ের বাগমেলা গ্রামের জ্ঞান চন্দ্রের ছেলে গৌরাঙ্গ, নিতাইগঞ্জের গণেশের ছেলে শিপন, রূপগঞ্জ সাব রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক ও দক্ষিণ নবগ্রামের বাসিন্দা জয়নাল আবেদীনসহ অজ্ঞাত আরও ১১ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এভাবেই তিনি একের পর মামলা দিয়ে নিরীহ মানুষকে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

অভিযুক্ত এসপি মিজানুর রহমান জানান, আমার কেনা জমির কাগজে কিছুটা সমস্যা রয়েছে। রূপগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসে মিসকেছ দিয়ে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে। তাই রূপগঞ্জ থানায় মামলা দিয়েছি।